1. rajoirnews@gmail.com : ABDUL AZIZ : ABDUL AZIZ
  2. gopalganjbarta@gmail.com : ashik Rahman : ashik Rahman
  3. news.coxsbazarvoice@gmail.com : ABDUL AZIZ : ABDUL AZIZ
  4. jmitsolutionbd@gmail.com : jmmasud :
ভাসানচরে পৌছেছে আরও দুই হাজার ২৬০জন রোহিঙ্গা - Coxsbazar Voice
বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১, ০৪:০৩ পূর্বাহ্ন
দৃষ্টি দিন:
সম্মানিত পাঠক, আপনাদের স্বাগত জানাচ্ছি। প্রতিমুহূর্তের সংবাদ জানতে ভিজিট করুন -www.coxsbazarvoice.com, আর নতুন নতুন ভিডিও পেতে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল Cox's Bazar Voice. ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে শেয়ার করুন এবং কমেন্ট করুন। ধন্যবাদ।

ভাসানচরে পৌছেছে আরও দুই হাজার ২৬০জন রোহিঙ্গা

  • প্রকাশিত : বুধবার, ৩ মার্চ, ২০২১, ১১.৫৮ এএম
  • ৪৯ জন সংবাদটি পড়েছেন।

ভয়েস নিউজ ডেস্ক:

পঞ্চম দফায় আরও ৪ হাজার রোহিঙ্গা যাচ্ছে ভাসানচরে। এদের মধ্যে ২ হাজার ২৬০ জন রওনা হয়েছেন গন্তব্যে। বুধবার (৩ মার্চ) সকাল সাড়ে ১০টায় চট্টগ্রাম বোট ক্লাব থেকে তাদেরকে নিয়ে ভাসানচরের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে নৌ বাহিনীর ৬টি জাহাজ।

এর আগে গতকাল (মঙ্গলবার) টেকনাফ ও উখিয়ার বিভিন্ন ক্যাম্প থেকে বাসযোগে চট্টগ্রামে বিএএফ শাহীন কলেজের অস্থায়ী ক্যাম্পে রাখা হয় রোহিঙ্গাদের। সেখানে রাত্রিযাপন শেষ বুধবার ভাসানচরের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে তারা।

ভাসানচরে যাওয়া রোহিঙ্গারা বলছেন, টেকনাফ-উখিয়ার ক্যাম্পগুলোতে বসবাসের তেমন সু-ব্যবস্থা না থাকায় স্বেচ্ছায় তারা ভাসানচরে যাচ্ছে। এর আগে তাদের যেসব আত্মীয়-স্বজন ভাসানচরে গেছেন তাদের সঙ্গে কথা বলে সেখানে যেতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

গত ১৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চার দফায় কক্সবাজারের ক্যাম্প থেকে ভাসানচরে স্থানান্তর করা হয়েছে ৯ হাজার ৫৪০ জন রোহিঙ্গা। প্রথম দফায় গত ৪ ডিসেম্বর ১ হাজার ৬৪২ জন রোহিঙ্গা স্বেচ্ছায় ভাসানচরে যান।

এরপর ২৯ ডিসেম্বর দ্বিতীয় ধাপে ১ হাজার ৮০৫ জন ও তৃতীয় ধাপে দুইদিনে ২৮ ও ২৯ জানুয়ারি ৩ হাজার ২০০জন রোহিঙ্গাকে ভাসানচরে স্থানান্তর করা হয়। ১৪ ফেব্রুয়ারি ২ হাজার ১৪ জন ও ১৫ ফেব্রুয়ারি ৮৭৯ জন রোহিঙ্গা ভাসানচরের উদ্দেশ্যে যাত্রা করে।

ভয়েস/আআ

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2020
Design & Developed by : JM IT SOLUTION