1. rajoirnews@gmail.com : ABDUL AZIZ : ABDUL AZIZ
  2. gopalganjbarta@gmail.com : ashik Rahman : ashik Rahman
  3. news.coxsbazarvoice@gmail.com : ABDUL AZIZ : ABDUL AZIZ
  4. jmitsolutionbd@gmail.com : jmmasud :
ফ্যারো দ্বীপপুঞ্জে ১৪২৮টি ডলফিন হত্যা - Coxsbazar Voice
শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:১৮ পূর্বাহ্ন
দৃষ্টি দিন:
সম্মানিত পাঠক, আপনাদের স্বাগত জানাচ্ছি। প্রতিমুহূর্তের সংবাদ জানতে ভিজিট করুন -www.coxsbazarvoice.com, আর নতুন নতুন ভিডিও পেতে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল Cox's Bazar Voice. ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে শেয়ার করুন এবং কমেন্ট করুন। ধন্যবাদ।

ফ্যারো দ্বীপপুঞ্জে ১৪২৮টি ডলফিন হত্যা

  • প্রকাশিত : বুধবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৬.৪০ পিএম
  • ১৯ জন সংবাদটি পড়েছেন।

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

উত্তর আটলান্তিক মহাসাগরের দ্বীপপুঞ্জ ফ্যারো। ডেনমার্কের অধীন স্বশাসিত এ অঞ্চলে রোববার (১২ সেপ্টেম্বর) প্রায় এক হাজার চারশোর বেশি ডলফিন হত্যা করা হয়েছে। গ্রিন্ডাড্র্যাপ নামে যে শিকার উৎসবে ডলফিনগুলো হত্যা করা হয়েছে, সেই উৎসবও প্রায় চারশো বছর ধরে চলে আসছে।
কিন্তু রোববার এত বেশি ডলফিন মারা হয়েছে যে, পরিবেশ বিজ্ঞানী, সমুদ্র ও তার জীবনচক্র নিয়ে কাজ করা বিশেষজ্ঞরা নির্বিচারে প্রাণীহত্যার নিন্দা করেছেন। তারা অবিলম্বে এই প্রথা বন্ধের দাবি তুলেছেন। এমনকি একসময় শিকার উৎসবে যুক্ত ছিল, এরকম একটি সংস্থার সাবেক চেয়ারম্যান জানিয়েছেন, এ বছর এত বেশি প্রাণীহত্যা করা হয়েছে যে তিনি নিজেকে উৎসব থেকে সরিয়ে নিয়েছেন।

পরিবেশ বিষয়ক সংস্থা সি শেফার্ড সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে একটা দীর্ঘ ভিডিও পোস্ট করে জানিয়েছে, শিকার উৎসবে এক হাজার ৪২৮টি ডলফিন মারা হয়েছে। এই ডলফিনগুলোর একপাশ সাদা। এর আগে কখনো এত ডলফিন হত্যা করা হয়নি।

সুইজারল্যান্ডভিত্তিক সংস্থা ওশন কেয়ার বলেছে, শিকার উৎসবের নামে যেভাবে প্রাণী হত্যা করা হয়েছে তা মানা যায় না। সব সীমারেখা তারা পার করে গেছে।

জার্মান সংবাদমাধ্যম ডয়েচে ভেলে এক প্রতিবেদনে জানায়, ফ্যারো দ্বীপপুঞ্জের মানুষ প্রতিবছর এক হাজারের মতো সামুদ্রিক প্রাণী হত্যা করেন। গতবছর তারা ৩৫টি ডলফিন মেরেছিলেন। এই শিকারে অংশ নেন বহু মানুষ। বিভিন্ন গোষ্ঠী নৌকায় করে ডলফিন ও পাইলট তিমিকে তাড়িয়ে তীরের দিকে নিয়ে যায়। তারপর ছুরি দিয়ে প্রাণীটিকে মারা হয়। এ নিয়ে স্থানীয় আইনও রয়েছে। অবশ্য প্রাণীর মাংস ও ব্লাডার স্থানীয় মানুষদের মধ্যে বিলি করে দেওয়া হয় সেখানে।

ভয়েস/আআ

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2020
Design & Developed by : JM IT SOLUTION