1. rajoirnews@gmail.com : ABDUL AZIZ : ABDUL AZIZ
  2. gopalganjbarta@gmail.com : ashik Rahman : ashik Rahman
  3. news.coxsbazarvoice@gmail.com : ABDUL AZIZ : ABDUL AZIZ
  4. jmitsolutionbd@gmail.com : jmmasud :
নুসরাতের রাজকীয় বিয়ে, নাটকীয় বিচ্ছেদ - Coxsbazar Voice
শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ০৬:৩৩ অপরাহ্ন
দৃষ্টি দিন:
সম্মানিত পাঠক, আপনাদের স্বাগত জানাচ্ছি। প্রতিমুহূর্তের সংবাদ জানতে ভিজিট করুন -www.coxsbazarvoice.com, আর নতুন নতুন ভিডিও পেতে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল Cox's Bazar Voice. ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে শেয়ার করুন এবং কমেন্ট করুন। ধন্যবাদ।

নুসরাতের রাজকীয় বিয়ে, নাটকীয় বিচ্ছেদ

  • প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ১০ জুন, ২০২১, ১০.১২ এএম
  • ২৭ জন সংবাদটি পড়েছেন।

বিনোদন ডেস্ক:
কাজের সূত্রে পরিচয় হয় নুসরাত জাহান ও নিখিল জৈনর। তারপর মনের লেনাদেনা। সময়ের সঙ্গে বাড়তে থাকে ঘনিষ্ঠতা। কিন্তু প্রেমের সম্পর্কের খবর বেমালুম চেপে যান। গোপনে ডুবে ডুবে জল খেতে থাকেন নুসরাত-নিখিল। সাংবাদিকরা প্রশ্ন করলেই উত্তর দিতেন, ‘আমরা ভালো বন্ধু।’ কিন্তু বন্ধুত্ব, প্রেম ছাপিয়ে বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন এই জুটি। টুঁ-শব্দটি না করে চলতে থাকে তাদের বিয়ে আয়োজন। তা-ও খুব সাদামাটা নয়, একেবারে রাজকীয় আয়োজনে বিয়ে!

পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী বিয়ের ভেন্যু ঠিক করেন তুরস্কের বোদরুমের সিক্স সেন্সেস কাপলাঙ্কায়া রিসোর্টে। বিয়ের দিন ২০১৯ সালের ১৯ জুন। বাহারি আয়োজনে সাজানো হয় রিসোর্ট। কলকাতা থেকে উড়ে যান বর-কনে নুসরাত ও নিখিল। তাদের সঙ্গে উড়াল দেন দুই পরিবারের সদস্য ও ঘনিষ্ঠ বন্ধুরা। নির্ধারিত সময়ে দুই পক্ষের ধর্মীয় রীতি মেনে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়। কারণ একজন মুসলিম অন্যজন হিন্দু। কথা ছিল, কলকাতায় ফিরেই আইনি মতে বিয়ে সারবেন তারা। কলকাতায় ফেরার পর একই বছরের ৫ জুলাই বিবাহোত্তর সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন একটি পাঁচ তারকা হোটেলে। জাকজমকপূর্ণ এ অনুষ্ঠানে তারার মেলা বসেছিল। শুধু তাই নয়, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিসহ অনেক রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব উপস্থিত হয়েছিলেন।

তবে নুসরাতের বিয়ের মেহেদির রঙ শুকানোর আগেই বিশেষ গোষ্ঠীর রোষাণলে পড়েন তিনি। প্রশ্ন উঠেছিল—হিন্দুকে বিয়ে করে হিন্দু হয়ে গেলেন নুসরাত? কিন্তু এ বিষয়ে নুসরাত ছিলেন ‘ডোন্ট কেয়ার’। ওই সময়ে এই অভিনেত্রী বলেছিলেন, ‘আমার তো মনে হয়, কোন ধর্ম অনুসরণ করব, সেই সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার সবার রয়েছে। আমি জন্মসূত্রে ইসলাম ধর্মাবলম্বী, সেটাই অনুসরণ করছি। কিন্তু সব ধর্ম এবং তার নিয়মের প্রতি শ্রদ্ধা রয়েছে। আমি এবং আমার স্বামী আমাদের ধর্ম পালন করছি। আর এটাই স্বাভাবিক।’

সবকিছু ছাপিয়ে চলতে থাকে নুসরাত-নিখিলের সংসার। কিন্তু হঠাৎ তাদের জীবনে ছন্দপতন ঘটে। গত ৬ মাস ধরে আলাদা থাকছেন তারা। আলাদা থাকার খবরটিও চেপে রেখেছিলেন নুসরাত। তবে অভিনেতা যশ দাশগুপ্তর সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্কের গুঞ্জন বার বার তাকে আলোচনায় নিয়ে আসে। এর সূত্রপাত চলতি বছরের শুরুতে প্রেমিক যশের সঙ্গে অবসর যাপনে যাওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে। তারপরও নিখিল আশায় বুক বেঁধেছিলেন নুসরাত ফিরে যাবেন। নুসরাত তার কাছে কিছুটা সময়ও চেয়েছিলেন। কিন্তু কয়েকদিন আগে খবর চাউর হয়, অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছেন নুসরাত। অন্যদিকে তার স্বামী নিখিল জৈন দাবি করেন, নুসরাতের এ সন্তানের বাবা তিনি নন। এ বক্তব্য শুনে নেটিজেনদের চোখ কপালে উঠে যায়! নেটদুনিয়ায় শুরু হয় তোলপাড়। নেটিজেনদের একটাই প্রশ্ন, এ সন্তানের বাবা কে? যদিও অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার বিষয়ে মুখে কুলুপ এঁটেছেন এই সাংসদ। তাতে এই রহস্য আরো বেশি ঘনীভূত হচ্ছে!

নুসরাতের দ্বিতীয় বিয়ে ও সন্তানের বিষয়ে যখন সমালোচনায় মুখর টলিপাড়া থেকে নেটদুনিয়া। তখন নিখিল দাবি করেন, ‘বহুদিন ধরে আমার ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করছে নুসরাত।’ নিখিলের ঘনিষ্ঠ বন্ধুদের দাবি, ‘নিখিলের সঙ্গে সংসার করার সময়ে অভিনেতা যশের সঙ্গে পরকীয়া সম্পর্কে জড়ান নুসরাত। সম্প্রতি তারা গোপনে বিয়েও করেছেন।’ বর্তমান স্বামীর সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদের আগেই কীভাবে আরেকজনকে বিয়ে করলেন নুসরাত? এই প্রশ্ন ঠোঁটে নিয়ে নেটিজেনরা সোশ্যাল মিডিয়া মুখর করে তুলেন। নাটকীয়তার এই পর্যায়ে হঠাৎ নিখিল জানান, নুসরাতের বিরুদ্ধে দেওয়ানি মামলা দায়ের করেছেন তিনি। কারণ নুসরাতের সঙ্গে তার রেজিস্ট্রি বিয়ে হয়নি। বুধবার (৯ জুন) এক বিবৃতিতে নুসরাত বলেন, ‘বিয়ে নয়, নিখিলের সঙ্গে লিভ-ইন করেছি। ফলে বিবাহবিচ্ছেদের প্রশ্নই ওঠে না।’ এ যেন সমালোচনার আগুনে ঘি ঢেলে দেন এই প্রাক্তন প্রেমিক যুগল।

নিখিল-নুসরাতের বিয়েবিচ্ছেদ, যশ-নুসরাতের প্রেমের গুঞ্জন নিয়ে চরম টানাহেঁচড়া হলেও নিখিল-নুসরাতকে কাদা ছোড়াছুড়ি করতে দেখা যায়নি। পরস্পরকে নিয়ে মন্তব্য করাই বন্ধ রেখেছিলেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত মুখ বন্ধ রাখতে পারেননি কেউ-ই। বরং পরস্পর পরস্পরের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ তুলেছেন। খুব শিগগির নিখিলের বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগ করবেন বলে জানিয়েছে নুসরাত। শেষ পর্যন্ত মামলা করলে নিখিল-নুসরাতের বিচ্ছেদ পর্বে নতুন নাটকীয় অধ্যায় যুক্ত হবে।

নিখিল-নুসরাতের নাটকীয় বিচ্ছেদের বিষয়ে মন্তব্য করেছেন লেখিকা তসলিমা নাসরিন। তিনি বলেন—‘নিখিল আর নুসরাতের ডিভোর্স হয়ে যাওয়াই কি ভালো নয়? অচল কোনো সম্পর্ক বাদুড়ের মতো ঝুলিয়ে রাখার কোনো মানে হয় না। এতে দু’ পক্ষেরই অস্বস্তি।’ তবে বিয়ে যেহেতু হয়নি, তাই আনুষ্ঠানিক বিচ্ছেদের বালাই নেই। কিন্তু কাদা ছোড়াছুড়ি বন্ধ করে সমঝোতার মধ্য দিয়ে দুজনার দুটি পথে চলে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন নেটিজেনদের একাংশ। তাতে ‘বিচ্ছেদ’ নামের নাটকে নতুন কোনো দৃশ্য যুক্ত হবে না।

ভয়েস/জেইউ।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2020
Design & Developed by : JM IT SOLUTION