1. rajoirnews@gmail.com : ABDUL AZIZ : ABDUL AZIZ
  2. gopalganjbarta@gmail.com : ashik Rahman : ashik Rahman
  3. news.coxsbazarvoice@gmail.com : ABDUL AZIZ : ABDUL AZIZ
  4. jmitsolutionbd@gmail.com : jmmasud :
ঘাটের নিরাপদ যাত্রী সেবা নিয়ে ডিসি’কক্সবাজার কে লিগ্যাল নোটিশ - Coxsbazar Voice
মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ১০:৪৯ অপরাহ্ন
দৃষ্টি দিন:
সম্মানিত পাঠক, আপনাদের স্বাগত জানাচ্ছি। প্রতিমুহূর্তের সংবাদ জানতে ভিজিট করুন -www.coxsbazarvoice.com, আর নতুন নতুন ভিডিও পেতে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল Cox's Bazar Voice. ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে শেয়ার করুন এবং কমেন্ট করুন। ধন্যবাদ।

ঘাটের নিরাপদ যাত্রী সেবা নিয়ে ডিসি’কক্সবাজার কে লিগ্যাল নোটিশ

  • প্রকাশিত : বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৬.২৩ পিএম
  • ১০০০ জন সংবাদটি পড়েছেন।
ডিসি, মো.কামাল হোসেন ও এড.ফারুক ইকবাল, ফাইল ছবি।

ভয়েস প্রতিবেদক:

মহেশখালী টু কক্সবাজার নৌ রুটে যাত্রী পারাপারে যাত্রী-পর্যটকদের দীর্ঘদিনের অভিযোগ ছিল অনিয়ম আর অব্যবস্থপনার।

সূত্র জানান, দীর্ঘ ১০ বছর ধরে খাস কালেকশনের মাধ্যমে জেলা প্রশাসনের তত্ত¡বধানে পরিচালিত হয়ে আসছে মহেশখালী-কক্সবাজার ঘাট। অভিযোগ আছে এই রুটে দায়িত্ব পালনকারী ডিডিএলজি অফিসের অফিস সহায়করা পর্যন্ত ঘাটের দুর্নীতির মাধ্যমে বিপুল টাকার মালিক বনে গেছে। উৎকোচের বিনিময়ে কয়েকটি পক্ষের স্পীডবোটকে সুবিধা দেয় যার ফলে শৃঙ্খলা থাকেনা। ইচ্ছামাফিক বোট চলে। সঠিক সময়ে যাত্রীরা বোট পেতে দুর্বিসহ ভোগান্তিতে ভোগে। কিন্তু কর্তৃপক্ষ কিছু বিষয় আমলে নিলেও বেশির ভাগ সময় আমলে নেননা।

যাত্রীদের আরো অভিযোগ, এই নৌ রুটে যাতায়তকারী উচ্চ লেভেলের সরকারি কর্মকর্তা এবং শীষপর্যায়ের রাজনৈতিক নেতা এবং তাদের পরিবার সবসময় বিশেষ সুবিধা ভোগ করে যার ফলে ঘাটের সুষ্ঠু ব্যবস্থপনার বিষয়ে সম্পূর্ণ স্টাফদের মর্জিমাফিক চলে। সর্বশেষ গত ২০ সেপ্টেম্বর বাঁকখালী মোহনায় নৌ দুর্ঘটনায় নিঁখোজ হয়ে ২২ সেপ্টেম্বর লাশ হয়ে ফিরে মহেশখালীর কলেজ ছাত্র আশরাফুল মোহাম্মদ তোফাইল । যার ফলে ঘাটের অনিয়মের বিরুদ্ধে গতকাল মহেশখালীতে মানবন্ধন করে দাবি দেন মহেশখালীবাসির পক্ষে ছাত্রসমাজের প্রতিনিধিরা। তোফাইল মৃত্যু এবং ঘাটের সকল অনিয়মের বিষয়ে জনস্বার্থে জেলা প্রশাসক বরাবরে এড.ফারুক লিগ্যাল নোটিশ প্রেরণ করেন ডাকযোগে ২৩ সেপ্টেম্বর।

জেলাপ্রশাসক বরাবরে পাঠানো এডভোকেট ফারুক ইকবাল স্বাক্ষরিত লিগ্যাল পাঠকের জন্য হুবহু দেয়া হলো:

মাননীয়,
জেলা প্রশাসক
কক্সবাজার।
জনাব,
সম্মান পূর্বক বিনীত নিবেদন, আপনার নিয়ন্ত্রণ এবং পরিচালনাধীন মহেশখালী ফেরীঘাট এবং নৌ-রুটে অব্যবস্থপনা, অনিয়ম, দূর্নীতির মহোৎসবে পরিনত হয়েছে। তা আপনি নিশ্চয়ই অবগত আছেন। মানুষের স্বাভাবিক চলাচলের অধিকার, নির্বিঘ্নে যাতায়াতের অধিকার বাংলাদেশ সংবিধানে মৌলিক মানবিক অধিকার হিসেবে স্বীকৃত। কিন্তু এই অধিকারের সার্বিক বিষয় নিশ্চিত না করে বিশাল একটি জনগোষ্ঠীকে বঙ্গোপসাগরের মোহনায় বিপদ সংকূল অবস্থায় নিপতিত করার কোন অধিকার নাই এবং থাকতে পারেনা।

দীর্ঘদিন আপনার প্রশাসনিক এখতিয়ারাধীন ফেরীঘাটের অনিয়ম, দুর্নীতি, অব্যবস্থাপনার বিরুদ্ধে কোন কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহন করেন নি। ফলশ্রুতিতে সর্বশেষ আপনার নিয়ন্ত্রণাধীন ফেরীঘাটের তদরকের দায়িত্বপ্রাপ্তদের অবহেলায় বঙ্গোপসাগরের মোহনায় নিদারুণ মৃত্যুর মুখে পতিত হয়েছে মহেশখালীর বাসিন্দা চট্টগ্রাম কলেজের দর্শন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র তোফায়েল।

যুগ যুগ ধরে ফেরিঘাট জেলা প্রশাসন কর্তৃক ইজারা হতো। উক্ত সময়ে ইজরা গ্রহীতার জবাবদিহিতা নিশ্চিত ছিল। যখন থেকে উচ্চ আদালতের মামলার অজুহাতে খাস- কালেকশনের জন্য আপনার দপ্তর দায়িত্ব পালন শুরু করে তখন থেকেই ফেরিঘাট অব্যবস্থপনা, অনিয়ম, দূর্নীতি প্রকাশ্যে দৃশ্যমান হতে থাকে। বিগত দশ বছর আগে ফেরিঘাটের ইজরা হয়েছিল ৯০ লক্ষ টাকায়। বিদ্যমান সময়ে খাস- কালেকশনে সরকারের রাজস্বে দৈনিক কত টাকা জমা হয়েছে নাগরিক হিসেবে জানার অধিকার রয়েছে।
মহামান্য সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের

রিট পিটিশন ৩৩৯৯/২০১৬ নাম্বার মামলার ইজারা স্থগিতাদেশের অনুবলে মহেশখালী ফেরিঘাট খাস- কালেকশনের আওতায় নিয়ে আসেন।

মহামান্য সুপ্রিম কোর্টের বর্নিত রেকর্ডে স্থগিতাদেশ প্রত্যহার হয়েছে ২০১৭ সনের ডিসেম্বরে।
আপনার কার্যালয়কে ওয়াকিবহাল করার পরে ও এতদিন মহেশখালীর ফেরিঘাটকে খাস- কালেকশনের আওতায় রাখার কারন জানা যায়নি।

লিগ্যাল নোটিশের কপি।

ফিটনেস বিহীন স্পীড বোট এবং পরিত্যক্ত কাটের বোট গন পরিবহনের সংজ্ঞায় পড়েনা।
মহেশখালীর ৫ লক্ষ মানুষের নির্বিঘ্নে যাতায়াতের জন্য লঞ্চ, স্টীমার, কিংবা নৌ- ফেরীর ব্যবস্থা করার কোন প্রয়োজন অনুভব করেন নি। ফলশ্রুতিতে মানুষের জীবনহানির মত নৌ-দূর্ঘটনা বহুবার সংঘটিত হয়েছে। অধিকন্তু জেলা প্রশাসনের অবহেলা জনিত দায় সুস্পষ্ট হয়েছে।

উপরোক্ত বিষয়ের আলোকে আপনার প্রশাসনিক ব্যবস্থাপনার অধীন কি কি পদক্ষেপ গ্রহন করলে দিবা নৈশ মহেশখালীর পাঁচলক্ষ মানুষের যাতায়াত ব্যবস্থা নিরাপদ, আরামদায়ক করা যাবে তৎ ব্যবস্থা গ্রহন করবেন কিনা এবং গত২০/০৯/২০২০ সনে আবহাওয়া অধিদপ্তরের নোটিশ উপেক্ষা করে আপনার দপ্তরের ফেরিঘাট তদারকির দায়িত্বপ্রাপ্ত দের অবহেলা জনিত কারনে সৃষ্ট নৌ-দূর্ঘটনায় নিহতও আহত দের ক্ষতিপূরণের আওতায় আনবেন কিনা আইনগত বিজ্ঞপ্তি প্রাপ্ত হওয়ার সাত( ৭) দিনের মধ্যে আপনাকে নিম্ন স্বাক্ষরকারীর ঠিকানায় জবাব প্রদানের বিশেষভাবে অনুরোধ করছি।

উলে­খ্য, এডভোকেট মোহাম্মদ ফারুক ইকবাল, জেলা ও দায়রা জজ আদালত, কক্সবাজারে আইনী পেশায় নিয়োজিত এবং মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল’র সদস্য।

ভয়েস/জেইউ।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2020
Design & Developed by : JM IT SOLUTION